1. bd439364@gmail.com : BD FARIDPUR 24 : BD FARIDPUR 24
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪৭ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
***পরীক্ষামূলক সম্প্রচার***
প্রধান খবর
করোনায় কারণে যে সংকট সৃষ্টি হয়েছে, একসাথে মোকাবেলা করতে হবে -শেখ হাসিনা। BOBPL সভাপতি আলহাজ্ব শেখ মোঃ ফজলুল হক করোনা থেকে নিজে বাচুন অন্যকে বাচাতে এগিয়ে আসুন। রাসুলুল্লাহ সাঃ,র জীবনি নিয়ে সংক্ষিপ্ত কিছু প্রশ্ন উত্তর। পবিত্র আশুরা সংক্ষিপ্ত বিবরণ আলহাজ্ব শেখ মোঃ ফজলুল হক,। বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। ১৯২০-১৯৭৫-১৫ আগষ্ট পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু,র কৃতিত্ব। বঙ্গবন্ধুর জুলিও কুরি পুরস্কার বঙ্গবন্ধু ঘোষিত বাঙালীর মুক্তির সনদ-৬ দফা ভাষা আন্দোলন বঙ্গবন্ধু। ২১-ফেব্রুয়ারী ভাষা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর বলিষ্ঠ ভুমিকা। টুঙ্গিপাড়ার মুজিব কি ভাবে বঙ্গবন্ধু এবং জাতির পিতা হলেন জানুন- মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনায় শতভাগ বিদ্যুৎ।

১৭ মার্চ জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীতে, BOBPL কতৃক শ্রোদ্ধাজ্ঞাপন।

  • Update Time : মঙ্গলবার, ১৭ মার্চ, ২০২০
  • ২২৯ বার পড়া হয়েছে

সৌজন্যে গোলাম মোস্তফা উপদেষ্টা কেন্দ্রীয় কমিটি বাংলাদেশ অনলাইন বঙ্গবন্ধু পরিষদ লীগ।

স্বাধীনতার স্থপতি বিশ্ব বিখ্যাত
সংগ্রামী নেতা জাতিরজনক
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর
রহমান
“”””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””””
১৯২০ সালে ১৭ মার্চ,
গোপালগঞ্জের টুংগিপাড়ায় জন্ম
গ্রহন করেন। বাঙলাদেশের এই
মহান নেতার একশত বছর পূর্তি
জন্মবার্ষিকী আজ আমাদের এই
দিবসটি আমাদের জাতীয় জীবনে অত্যন্ত স্মরণীয় ও
চেতনাদানকারী দিবস যাহার মূ্ল্য
স্বাধীনতা প্রাপ্তির সমমর্যাদা থেকে
কম নয়!আজ আমাদের প্রাণবন্ত
এই নেতার জীবদ্বশায় কত জেল
কত কষ্ট কত লাঞ্চণা বঞ্চনার
মধ্য দিয়ে জীবন কাটিয়েছেন,
সবচেয়ে বড় পরিতাপের বিষয়টা
হলো,বাঙলাদেশের এই সংগ্রামী
নেতা ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট
স্বপরিবারে বাঙগালির প্রতি তাঁর
নিরঙ্কুষ ভালবাসাকে বাঙালির
প্রতি চির উৎসর্গ করে স্মৃতির
পরিসরে তিনি আমাদের সকলের
হৃদয়ে অমর হয়ে রইলেন তিনি।
দিগন্তময় পরিল সারা
শুধু প্রাণখানিই তাঁর করিল ত্বারা
বিদায় নিল বুজি!তবু তিনি আজ
আছেন মোদের মাজে
তিনি আছেন কেঁদে কেঁদে বলে
বাঙালির চোখের অশ্রুধারা!
অদ্য ১৭/৩/২০২০ সালে আমাদের এই জাতীয় নেতার জন্ম শতবর্ষ পালণে কর্তব্য মূখর
পরিবেশে সমগ্র বাঙালি জাতি
প্রাণভরে এই জাতীয় নেতার প্রতি
বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছি!
বঙ্গবন্ধুর ভালবাসার সোনার বাঙলা আজ বিশ্বে স্বাধীন বাঙলায় পরিণত হলো,বঙ্গবন্ধুর
ভলবাসার মুক্তিকামী সব বাঙালি
ও মুক্তিবাহিনী,ও মুজিব বাহিনীর
অবদান আজ আমাদের এই
সোনার দেশ বাঙলাদেশ!
আমার সোনার বাঙলা
আমি তোমায় ভালবাসী!
সমগ্র জাতিকে যিনি ঐক্যবদ্ধ করে বিপ্লবকে উত্তেজিত করে
চেতনায় স্বাধীনতার সাধ তৈরি
করে দিয়েছিলেন সেই আমাদের
এই মহান নেতা বঙ্গবন্ধু!
ভুলিতে পারিনা ভুলব কেমন করে
বন্ধুটি নেই আমার তবু আছেন
তিনি আমার হৃদয় জূরে!
স্বাধীনতার মূল মন্ত্রগুলি
আজো মনে পরে!
এবারের সংগ্রাম, স্বাধীনতার সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম মুক্তির
সংগ্রাম,ভাইয়েরা আমার আমি যদি নাও থাকি প্রত্যেক ঘরে ঘরে,
প্রত্যেক মহল্লায় সংগ্রাম প্রতিরোধ গড়ে তুলুন! দুর্গ গড়ে
তুলুন এই ভাবে চেতনাকে যিনি
তৎকালীণ সারে সাত কোটি মানুষের মগজে স্বাধীনতার বীজ
বপন করেছিলেন, যিনি জীবনের
সিংহভাগ সময় শুধু জেলে
কাটিয়েছন,নিজের জীবনের মায়া
ছেড়ে বাঙালির ভালবাসাকে
প্রধান্য দিয়ে জীবন উৎসর্গ করেছেন তারই বদৌলতে পেয়েছি মোরা স্বাধীনতা! আজ
ডিজিটাল বাঙলাদেশ হলো, কি
ভাবে হলো?
সারে সাত কোটি মানুষের মধ্যে
পূর্বপাকিস্তান ও পশ্চিম পাকিস্তান
এই দুই প্রদেশেই গন ভোটে সংখ্যা গরিষ্ট ভোটে নির্বাচিত হয়ে
ছিলেন তিনি!
পূর্বপাকিস্তানের জন্য বরাদ্দকৃত
১৭৯ আসন সংখ্যায় বঙ্গবন্ধু
পেয়েছিলেন ১৬৭ টি আসন! তার
পরও পশ্চিম পাকিস্তানিরা ও
রাজাকার বলবদর যারা তারা বলত বাংলাদেশ কখনও স্বাধীনই
হবে না! এইভাবেই তারা পিছু টানতো আর সারা দেশের মানুষই
আমার ভাই তুমার ভাই মুজিব
ভাই শ্লোগান দিত। তারা সামান্য
দুটি আসন পেয়েই স্বৈরাচারী রূপ
ধারণ করে সার্চলাইট অপারেশন
নাম দিয়ে আমার আপনার নিরহ
মা বোনদের উপর পশুর মত
অমানুষিক নির্যাতন চালিয়ে যেতে শুরু করল। ১ কোটি নিরহ
যনসাধারণ স্মরনার্থী হয়ে ভারতে
আশ্রয় নিল,স্বাধীনতা প্রাপ্তিযোগ্য
হওয়ার পথে যখন মুক্তিবাহিনীরা
এগিয়ে তখন পাকিস্তানিরা বলে
তাদের যুদ্ধ ভারতের সঙ্গে, বাঙলাদেশের সঙ্গে নয়, অথচ
পাকিস্তানী রাজাকার,আলবদর,
এইসব মিলে তখন ত্রিশ লক্ষ
বাঙালি নির্মম নরপশুর মত হত্যা
করেছে! তারপর ৪ নবেম্বর
যখন বল্ল যুদ্ধ ভারতের সঙ্গে তখন ভারত বাংলাদেশের মিত্র
দেশ হিসাবে ছিল,তখন ১৯৭১ সাল,ভারতের ক্ষমতায় শ্রীমতী
ইন্দীরা গান্ধি সেনাবাহিনীর প্রধান
শিখ বংশদ্ধুত আরুরার সিং কে
মুক্তি বাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধে অংশগ্রহন করার সমস্ত ক্ষমতা
প্রয়োগের অনুমতি দিল। আর
১৬ ডিসেম্বর বিজয় ঘোষণা হলে
পাকিস্তানি বাংকারে আমাদের
নির্যাতিত ও জীবন কুলশীত মা
বোন অর্থাৎ ষাট(৬০) হাজার
বিরঙ্গনা পাওয়া গেল! শত সহস্র
কষ্টের ও আত্মকান্নার এই স্বাধীনতার মহান নায়ক আমাদের
এই হাজার বছরের শ্রেষ্ট বাঙালি
জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের শতবর্ষ ১৭ মার্চ ২০২০ উৎযাপন করতে যাচ্ছি, আল্লাহ্ যেন আমাদের এই
প্রিয় নেতার জন্ম শতবার্ষিকী
পালণ শুভ ও নিরাপদ করেন,
শেষুক্তে জাতিরজনকের প্রতি
আবারও বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন
করছি,আর মাননীয়া প্রধানমন্ত্রী
ও সম্মানিত/সম্মানিতা সকল
সকল সদস্য বৃন্দের প্রতি
আমাদের BOBPL এর পক্ষ থেকে নিরঙ্কুশ দেশাত্মবোধক
শ্রদ্ধা প্রদর্শন করে যবনিকা টানলাম।
বাঙলাদেশ চিরজীবী হোক
সকল প্রশংসা আল্লাহর
জয় বাংলা।

ভাল লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর
© All rights reserved 2020 bobplonlinenews
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD