1. bd439364@gmail.com : BD FARIDPUR 24 : BD FARIDPUR 24
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:১৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
***পরীক্ষামূলক সম্প্রচার***
প্রধান খবর
করোনায় কারণে যে সংকট সৃষ্টি হয়েছে, একসাথে মোকাবেলা করতে হবে -শেখ হাসিনা। BOBPL সভাপতি আলহাজ্ব শেখ মোঃ ফজলুল হক করোনা থেকে নিজে বাচুন অন্যকে বাচাতে এগিয়ে আসুন। রাসুলুল্লাহ সাঃ,র জীবনি নিয়ে সংক্ষিপ্ত কিছু প্রশ্ন উত্তর। পবিত্র আশুরা সংক্ষিপ্ত বিবরণ আলহাজ্ব শেখ মোঃ ফজলুল হক,। বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। ১৯২০-১৯৭৫-১৫ আগষ্ট পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু,র কৃতিত্ব। বঙ্গবন্ধুর জুলিও কুরি পুরস্কার বঙ্গবন্ধু ঘোষিত বাঙালীর মুক্তির সনদ-৬ দফা ভাষা আন্দোলন বঙ্গবন্ধু। ২১-ফেব্রুয়ারী ভাষা আন্দোলনে বঙ্গবন্ধুর বলিষ্ঠ ভুমিকা। টুঙ্গিপাড়ার মুজিব কি ভাবে বঙ্গবন্ধু এবং জাতির পিতা হলেন জানুন- মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনায় শতভাগ বিদ্যুৎ।

শহীদ শেখ রাশেল এর শুভ জন্মদিনের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশ অনলাইন বঙ্গবন্ধু পরিষদ লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সভাপতি-

  • Update Time : শনিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২০
  • ৮৬ বার পড়া হয়েছে

বাংলাদেশ অনলাইন বঙ্গবন্ধু পরিষদ লীগ এর কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সংগ্রামী সভাপতি সাবেক সহসম্পাদক কেন্দ্রীয় ধর্ম বিষয়ক উপকমিটি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং ৮৪/৮৫ সালের সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আলহাজ্ব শেখ মোঃ ফজলুল হক, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ সন্তান বঙ্গবন্ধু পরিবারের সকলের আদরের শহীদ শেখ রাশেল এর ১৮-১০-২০২০ রোজ রবিবার-৫৭তম শুভ জন্মদিনের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন এবং বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

১৯৬৪ সালের ১৮ অক্টোবর ধানমন্ডির ৩২ নম্বর সড়কে বর্তমান বঙ্গবন্ধু ভবনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সর্বকনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের জন্ম গ্রহন করেন।

১৫ আগস্ট ১৯৭৫ কালো রাতে জিয়া মোস্তাকের অনুসারী পাকিস্তানের দোষর খুনিদের হাত থেকে রক্ষা পায়নি ছোট রাসেল। তাঁকে হত্যার আগে ঘাতকরা একে একে জাতির পিতার পরিবারের অন্য সদস্য বড় ভাই শেখ কামাল, শেখ জামাল, দুই ভাবি সুলতানা কামাল – রোজী জামাল, মা ফজিলাতুন্নেসা মুজিব এবং বাবা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করে।

পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিহত হতে দেখে রাসেল দৌড়ে নিচে সারিবদ্ধভাবে দাঁড় করানো বাড়ির কাজের লোকজনের কাছে আশ্রয় নেয়। রাসেলের দীর্ঘকাল দেখাশুনার দায়িত্বে থাকা আবদুর রহমান রমা তখন রাসেলের হাত ধরে রেখেছিলেন।

একটু পরেই একজন সৈন্য রাসেলকে বাড়ির বাইরে পাঠানোর কথা বলে রমার কাছ থেকে তাকে নিয়ে নেয়।

আতঙ্কিত হয়ে শিশু রাসেল কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেছিলেন, “আমি মায়ের কাছে যাব”। পরবর্তীতে মায়ের লাশ দেখার পর অশ্রুসিক্ত কণ্ঠে মিনতি করেছিলেন “আমার হাসু আপা (শেখ হাসিনা) দুলাভাইয়ের (ড. এম. এ ওয়াজেদ মিয়া) সঙ্গে জার্মানিতে আছেন। … আপনারা আমাকে জার্মানিতে তাদের কাছে পাঠিয়ে দিন…।”

রাসেলের এই মর্মস্পর্শী আর্তিতে একজন সৈন্যের মন গলায় সে তাকে বাড়ির গেটে সেন্ট্রিবক্সে লুকিয়ে রাখে। কিন্তু এর প্রায় আধ ঘণ্টা পর একজন মেজর সেখানে রাসেলকে দেখতে পেয়ে তাকে দোতলায় নিয়ে ঠান্ডা মাথায় রিভলভারের গুলিতে হত্যা করে।

পাঁচ ভাই-বোনের মধ্যে সব ছোট রাসেল এমন সময়ে মৃত্যুকে আলিঙ্গন করেন যখন তিনি ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুলের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র। এক পা দু পা করে কেবল পৃথিবীকে দেখা শুরু করেছে।

বেঁচে থাকলে আজ তাঁর বয়স হত ৫৭ বছর। বঙ্গবন্ধুর সর্বকনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলের জন্মদিনে রইলো তাঁর প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা এবং বুকভরা ভালোবাসা।

ভাল লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই কেটাগরির আরো খবর
© All rights reserved 2020 bobplonlinenews
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD